ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৭, ২০২০

শিরোনামঃ

সাংবাদিক রাহাত খান আর নেই

সাংবাদিক রাহাত খান আর নেই

স্টাফ রিপোর্টার : সাংবাদিক রাহাত খান মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলিাইহি রাজিউন)। তিনি ডায়বেটিসসহ নানা বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাজধানীর ইস্কাটনের বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন রাহাত খান। তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর।

রাতে রাহাত খানের মরদেহ বারডেম হাসপাতালের হিমাগারে রাখা হবে। শনিবার সকাল ১১টায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতীয় প্রেসক্লাবে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। একুশে পদকপ্রাপ্ত সাংবাদিক রাহাত খানের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

রাহাত খানের স্ত্রী অপর্ণ খান জানান, দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগ, কিডনি, ডায়াবেটিসসহ বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন তিনি। গত ২০ জুলাই রাহাত খানকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর আগের দিন বাসায় খাট থেকে নামতে গিয়ে কোমরে ব্যথা পান তিনি। এরপর চিকিৎসকের পরামর্শে এক্সরে করা হলে পাঁজরে গভীর ক্ষত ধরা পড়ে। এর পাশাপাশি তার শাসকষ্ট দেখা দিলে জরুরি ভিত্তিতে তাকে বারডেম হাসপাতালের আইসিউতে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা ২৯ জুলাই আমাদের জানান- হাসপাতালে থেকে কোনো লাভ হবে না। ডায়েবেটিস, কিডনি, হার্টে সমস্যা থাকার কারণে কোনো সার্জারি করা যাবে না। এজন্য বাসায় নিয়ে আসা হয়। এরপর থেকে সারাক্ষণ বিছানায় শুয়ে থাকতে হয় রাহাত খানকে।

রাহাত খান বাংলাদেশের একজন খ্যাতিমান কথাশিল্পী। ছোটগল্প ও উপন্যাস উভয় শাখাতেই তার অবদান উল্লেখযোগ্য। সাংবাদিক হিসেবেও রাহাত খানের অবদান উল্লেখযোগ্য। দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায় তিনি ষাটের দশক থেকে কর্মরত ছিলেন। তিনি দৈনিক ইত্তেফাকের সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেছেন। সর্বশেষ তিনি দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ পত্রিকায় সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছিলেন। তিনি ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত হন। বিখ্যাত সিরিজ মাসুদ রানার রাহাত খান চরিত্রটি তার অনুসরণেই তৈরি করা।